শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবিতে আরও ১ লাশ উদ্ধার, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭

93

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যায় লাইটার জাহাজের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবির ঘটনায় আরও ১ জন লাশ অজ্ঞাত পুরুষের লাশ উদ্ধার হয়েছে। সোমবার (২১ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে দুর্ঘটনার পর ৭ জনের লাশ উদ্ধার হলো। এদের মধ্যে ২ পুরুষ, ৩ নারী ও ২ শিশুর লাশ রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ইন্সপেক্টর গোলাম মোস্তফা জানান, সকাল ১০টা ২০ মিনিটের দিকে মুন্সীগঞ্জের মোহনায় শাহ সিমেন্ট এলাকা থেকে এক পুরুষ যাত্রীর লাশ উদ্ধার হয়। তবে লাশের কোনও পরিচয় মেলেনি। ওই যাত্রীর নাম নিখোঁজের তালিকায় ছিল না বলেও জানান তিনি।

এরআগে, রবিবার (২০ মার্চ) দুপুরে শীতলক্ষ্যা নদীর চর সৈয়দপুর এলাকায় এমভি রূপসী-৯ নামে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় মুন্সীগঞ্জগামী লঞ্চ এমএল আফসার উদ্দিন ডুবে যায়। এ সময় লঞ্চের ১৫ থেকে ২০ যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠতে সক্ষম হন। লঞ্চটিতে প্রায় ৫০/৬০ জন যাত্রী ছিল বলে বেঁচে ফেরা কয়েকজন যাত্রী দাবি করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ-থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, উদ্ধার হওয়া লাশের মধ্যে ৪ জনের নাম-পরিচয় জানা গেছে। এরা হলেন- মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার উত্তর ইসলামপুর এলাকার জয়নাল আবেদীন ভূইয়া (৬০), মুন্সীগঞ্জের রমজানবেগ এলাকার আরিফা (৩৫) ও তার শিশু সন্তান সাফায়েত (দেড় বছর), গজারিয়া উপজেলার ইসমানিরচর এলাকার শিল্পা রানী।

এদিকে সোমবার ভোরে ডুবে যাওয়া এমএল আফসার উদ্দিন লঞ্চটি উদ্ধার করে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়। ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল আরেফীন জানান, ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ভেতরে কোনও লাশ পাওয়া যায়নি। উদ্ধার কাজে ফায়ার সার্ভিস ছাড়াও নৌ-পুলিশ, বিআইডব্লিউটিএর ডুবুরি দল ও কোস্ট গার্ডসহ একাধিক সংস্থা অংশ নেয়।

সূত্র নারায়ণগঞ্জ টাইমস