প্রতিবন্ধীদের ভাঙা ঘরটি নির্মাণ করে দেন মীর আব্দুল আলীম

270

তানজিলা: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইলে প্রতিবন্ধী তিন সন্তান নিয়ে ভাঙা ঘরে দম্পত্তির জীবন সংগ্রামের বিষয়টি সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরালের পর রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি লায়ন মীর আব্দুল আলীম সেই ভাঙা ঘরটি নির্মাণ করে দেন। জানা গেছে, গত এক বছর আগে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকায় প্রতিবন্ধী তিন সন্তানকে নিয়ে শাহ্আলম ও ইয়াসমিন নামে এক অসহায় দম্পত্তির ভাঙা ঘরে জীবন সংগ্রামের বিষয়টি সাংবাদিক বিপ্লব হাসানের ফেসবুক আইডিতে একটি লাইভ ভিডিও ভাইরাল হয়। ভিডিওতে উঠে আসে তাদের জীবন সংগ্রামের চিত্র। ঢাকা সুতরাপুরে তালা চাবি মেরামতের কাজ করে শাহ্ আলম (৫৫)। আর তার স্ত্রী ইয়াসমিন(৩৫) আগরবাতি তৈরির কাজ করেন। এই দম্পত্তির ৪ মেয়ের মধ্যে বড় তিনজনই শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী। এই প্রতিবন্ধী সন্তানদের নিয়ে রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ৫নাম্বার ক্যানেলের নাগেরবাগ দক্ষিণ ইসলামবাগ এলাকায় মাত্র ২ শতাংশ জমিতে একটি ভাঙা জরাজীর্ণ ঘরে দীর্ঘদিন যাবৎ বসবাস করছেন। রোদ্রের সময় তাপে সেই বসত ঘরে থাকা যায় না আর বৃষ্টির সময় গায়ে পলিথিন দিয়ে বসে থাকতে হয়। তবে সারাবছর যেমন তেমন বর্ষাকালে তাদের বেশি দূর্ভোগ পোহাতে হয়। উপর থেকে পড়ে বৃষ্টির পানি আর বর্ষার পানি তো আছেই। চারদিক পানিতে থৈ থৈ থাকায় তাদের বসত ঘরে পানি ঢুকে যায়। ফলে ব্যাঙ ও সাপ-বিচ্ছুর আস্তানায় রূপ নেয় তাদের বসতঘর। বৃষ্টির দিনে বই ভিজে যাওয়ার ভয়ে সন্তানরা ঠিকমতো পড়তেও পারে না। বই,শুকনো কাপড়সহ ঘরের আসবাবপত্র তারা পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখেন। আর প্রতিবন্ধী সন্তানদের নিয়ে জড়ো হয়ে বসে থাকেন ঘরের এক কোণে। রাতে বৃষ্টি হলে সন্তানদের নিয়ে জেগেই থাকেন সারারাত। এছাড়া তাদের বসত বাড়িতে প্রবেশের নির্দিষ্ট কোন রাস্তাও নেই। তাদের বাড়ির চার দিক পানিতে থৈ থৈ। খনে হাঁটু পানি খনে কোমড় পানি, দিয়েই যেতে হয় তাদের বসত বাড়িতে। শুধু তাই নয়, বসত বাড়ির সামনে রয়েছে প্রাচীরে ঘেঁরা এক ভয়ঙ্কর ঝোঁপ। তা পেরিয়ে তাদের আসা যাওয়া করতে হয়। প্রতিবন্ধী সন্তানদের নিয়ে আতঙ্কে থাকেন এই অসহায় দম্পত্তি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে অসহায় দম্পত্তির কষ্টের বিষয়টি ভাইরাল হলে গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মনজুর হোসেন ভূইয়া ও গোলাকান্দাইল ৬নং ওয়ার্ড মেম্বার নাসির উদ্দিন তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। একইভাবে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি লায়ন মীর আব্দুল আলীম তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। গত বৃহস্পতিবার(১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে সেই ঘরটি নির্মাণ করে দেন রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি লায়ন মীর আব্দুল আলীম। এ বিষয়ে লায়ন মীর আব্দুল আলীম জানান, এই অসহায় পরিবারের বিষয়টি আসলেই অনেক কষ্টের । প্রতিবন্ধী তিন সন্তান নিয়ে ভাঙা ঘরে দম্পত্তির জীবন সংগ্রামের বিষয়টি আমার আগে জানা ছিলোনা তবে আগে জানলে আমি তাদের ঘরটি আগেই নির্মাণ করে দিতাম। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের এই ঘরটি দেখে আমার অনেক কষ্ট লেগেছে তাই তাৎক্ষণিক ঘরটি নির্মাণ করে দিয়েছি। এছাড়া গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন তাদের বসত বাড়িটি পানিতে ডুবে যাওয়ায় বালু দিয়ে ভরাট করে উঁচু বানিয়ে দিবেন বলে জানান।