নির্বাচনী সহিংসতা,ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের গুলিতে নিহত-১

32
আসিফ জামান, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে ভোটের ফলাফল দেয়াকে কেন্দ্র করে পুলিশের গুলিতে হামিদুল ইসলাম(৬৫) নামের একজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো একজন। রোববার(২৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৭ টায় ভোট গননা শেষে সদর উপজেলার রাজাগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিণ আসান নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায়। নিহত হামিদুল ইসলাম রাজাগাঁও ইউনিয়নের তছির উদ্দিনের ছেলে। আহত একজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। পুলিশ জানায়, বিকেলে ভোট কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষনা করেন প্রিজাইডিং অফিসার। ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে টিবওয়েল ও ফুটবল প্রতীকের দুই মেম্বার প্রার্থীর মধ্যে দ্বন্দ বাধে। এসময় একটি পক্ষ পুলিশের উপর চাড়াও হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সেখানে গুলি চালায়। এসময় পুলিশের গুলিতে হামিদুল ইসলাম নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি নিহত হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে বলে জানান পুলিশ। রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায় বলেন, মেম্বার প্রার্থীর নির্বাচনী ফলাফল নিয়ে দ্বন্দের জেরে সরকারি কাজে বাধা দেয় একটি পক্ষ। তখন প্রিসাইডিং কর্মকর্তার নির্দেশে পুলিশ গুলি ছোড়লে একজন মারা যান। মরদেহ উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। উল্লেখ্য: ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলার ২০ টি ইউনিয়নে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৯৬০ জন। চেয়ারম্যান পদে ৭৩ জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ২০৯ জন,সাধারণ সদস্য পদে ৬৭৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। জেলা নির্বাচন অফিসের তথ্য মতে, সদর উপজেলার ২০ টি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৬৯ হাজার ৪৩৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোট ১ লাখ ৮৬ হাজার ৯৮৮ জন ও নারী ভোটার ১ লাখ ৮২ হাজার ৪৪৫ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ১৮৮ টি।